মুক্তি পেয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত ।

Dr Shahadat
উচ্চ আদালতের নির্দেশে অবশেষে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম কারাগার থেকে তাকে মুক্তি দেয়া হয়। এ সময় তার সঙ্গে আরো ৩ ছাত্রদল নেতাও বেরিয়ে আসেন।

পরে তারা নাসিমন ভবনের বিএনপি দলীয় সমাবেশে যোগ দেন। মহানগন বিএনপির সহদপ্তর সম্পাদক ইদ্রিস আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ডা. শাহাদাত ভাইসহ ৩ ছাত্রদল নেতা মুক্তি পেয়েছেন। বাকীরা আজ ও আগামীকালের মধ্যে মুক্তি পাবেন। সবার জামিন হয়েছে এক সঙ্গে।

জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে ৮ ফেব্রুয়ারি কাজীর দেউড়ি নাসিমন ভবনের দলীয় কার্যালয় থেকে পুলিশ শাহাদাতসহ ১৯ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে। তার মধ্যে ৭ জন মহিলা দলের নেত্রী রয়েছে। ঘটনার রাতেই নগরীর কোতোয়ালি থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইন ও পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে দুটি মামলা করা হয়।

মামলা দুটিতে শাহাদাত হোসেনসহ ৪৯ জনকে আসামি করা হয়। ওই দুই মামলায় তাকে রিমান্ডেও নেয় পুলিশ। একাধিকবার চট্টগ্রামের আদালতে জামিন আবেদন করলেও তা নামঞ্জুর হয়। পরে উচ্চ আদালতের যাওয়া হয়।

৭ মার্চ হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ শাহাদাত হোসেনসহ গ্রেফতার ১৯ জনের জামিন মঞ্জুর করে। কিন্তু তার আগেই ফেনীতে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরের পেছনে দুটি বাসে আগুন ও বিস্ফোরণের মামলায় শাহাদতকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম বলেন, চট্টগ্রামের দুটি মামলাতে হাই কোর্ট থেকে আগেই জামিন পেয়েছিলেন ডা. শাহাদাত হোসেন। পরে ফেনীর মামলাটির জামিন পায় শাহাদাত হোসেন।

Leave a Reply