পদ-পদবি পেয়ে যারা দলীয় কর্মকাণ্ডে আসেন না তাদের বাদ দিতে হবে:মহিউদ্দিন

 

Mohiuddin Chy

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘কিছু স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি বসন্তের কোকিল হয়ে দলে ঢুকে মন্ত্রী-এমপি হয়েছেন, সরকারি সেবা সংস্থার কর্ণধার হয়েছেন। এই স্বার্থান্বেষী বসন্তের কোকিলরা দলের পদ-পদবী পেয়ে এখন দলীয় কর্মকাণ্ডে আসেন না। তারা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারে ব্যস্ত। এরা সরকার ও দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করছেন এবং জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। এদের বাদ দিয়ে ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের নেতৃত্বের পুরোভাগে আনতে হবে।’ গতকাল কোতোয়ালী থানা আ’লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নগরীর মোমিন রোডস্থ একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত এ সভায় মহিউদ্দিন চৌধুরী শিক্ষাকে একটি গোষ্ঠী পণ্যে পরিণত করতে তৎপর বলে উল্লেখ করে বলেন, ‘একটি গোষ্ঠী শিক্ষাকে তাদের ইচ্ছে মতো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছে। তারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ট্রেড সেন্টার বানাতে চায়।’ এই অশুভ প্রবণতার বিরুদ্ধে ছাত্র-অভিভাবকদের রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান মহিউদ্দিন চৌধুরী।
নগর আ’লীগের এই অভিভাবক বলেন, ‘ঘরে-বাইরে নানামুখী চক্রান্ত চলছে। তাই একাত্তরের মত আরেকবার মরণজয়ী যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে বাঙালি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ডাকে নিরস্ত্র বাঙালি যার যা কিছু আছে তা নিয়ে সশস্ত্র হয়ে উঠেছিল এবং স্বাধীনতাকে ছিনিয়ে এনেছিল। বিজয়ী এই জাতিকে কিছুতেই দাবিয়ে রাখা যাবে না। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে দ্রুত এগুচ্ছে। বাংলাদেশ এখন কারো দয়া বা করুণার পাত্র নয়।’ গণতন্ত্র ও স্বাধীনতা রক্ষা এবং উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে ধরে রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে তিনি নেতাকর্মীদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।
তিনি যুব সমাজকে শুদ্ধচারী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘তাদের লোভ-লালসার ঊর্ধ্বে থেকে অনাচার মুক্ত হতে হবে। সমাজের প্রতি দায়বদ্ধ থাকতে হবে। তাদেরকেই নেতৃত্বের হাল ধরতে হবে। সরকার ও রাষ্ট্রের চালিকা শিক্তি হবার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। মনে রাখতে হবে বাংলাদেশের অভ্যূদয়ে তরুণরাই ছিল প্রাণ শক্তি। তারা দেশ ও জাতির উজ্জ্বল ভবিষ্যতের কারিগর। তাই কোনো পাপ যেন তাদের স্পর্শ না করে।’
কোতোয়ালী থানা আ’লীগ সভাপতি আলহাজ্ব ফিরোজ আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল মনসুরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম মহানগর আ’লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব নঈমুদ্দিন চৌধুরী, এডভোকেট সুনিল কুমার সরকার, এম. জহিরুল আলম দোভাষ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব বদিউল আলম, এমএ রশিদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, উপ-প্রচার সম্পাদক শহিদুল আলম, থানা আ’লীগের মিথুন বড়ুয়া, ওয়ার্ড কাউন্সিলর সলিমুল্লাহ বাচ্চু, মহিলা কাউন্সিলর নিলু নাগ, কোতোয়ালী থানার আশফাক আহমদ, আনিছ মিয়া, মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন মহানগর আ’লীগের কার্যকরী সদস্য নুরুল আমিন শান্তি, গৌরাঙ্গ চন্দ্র ঘোষ, অমল মিত্র, কোতোয়ালী থানার জাগির সর্দ্দার, মজিবুর রহমান, মশিউর রহমান রোকন, জাহাঙ্গীর আলম, পিযুষ বিশ্বাস, আবছার উদ্দিন আহমদ চৌধুরী, এসকে পাল, দিপক ভট্টাচার্য, মো. ইউসুফ, কানন বড়ুয়া, খোকন নাথ, মাস্টার জসিম উদ্দিন, মো. সালাউদ্দিন, রফিক আকবর, সরওয়ার বেলাল প্রমুখ।

Leave a Reply