নারী এমপিকে ‘অশালীন টেক্সট’ অযোগ্য হবেন কি ইমরান!

Imaran Khan and Ayesha Gulalei

নওয়াজ শরীফ প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতা হারিয়েছেন। তা নিয়ে পাকিস্তানের রাজনীতি নতুন করে আবর্তিত হচ্ছে। এর রেশ কাটতে না কাটতে সেখানকার রাজনীতিতে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি করেছেন একজন নারী এমপি আয়েশা গুলেলাই। তার কারণে কি ইমরান খান অযোগ্য ঘোষিত  হবেন! পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ কি ইমরানের ওপর প্রতিশোধ নিতে পারবেন! এমন নানা আলোচনা পাকিস্তানজুড়ে।

পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) দলের টিকিটে ‘খাইবার পাখতুনখাওয়া’ থেকে নির্বাচত জাতীয় পরিষদের সদস্যা আয়েশা গুলেলাই। সংবাদ সম্মেলন করে তিনি পিটিআই ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। অভিযোগ এনেছেন পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খানের বিরুদ্ধে। বলেছেন, ইমরান খান তাকে অশালীন টেক্সট ম্যাসেজ পাঠিয়েছেন। তিনি নারীদের সম্মান করতে জানেন না। উল্টো আয়েশার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে পিটিআই। তারা বলছে, চাপের মুখে ৫ কোটি রুপি অর্থ হাতিয়ে নিয়ে দল ছাড়ার ওই সংবাদ সম্মেলন করেছেন আয়েশা। এমন দাবি করেছেন পিটিআই নেতা ফাওয়াদ চৌধুরী। দল থেকে আয়েশার বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশও দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এতে ইমরান খানকে আপত্তিকর মন্তব্য করার জন্য ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে আয়েশাকে।

আসলে আয়েশা গুলেলাই ও ইমরান খানের মধ্যে কি এসএমএস বিনিময় হয়েছিল তা পুরোপুরি জানা যায় নি। তবে আয়েশা সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ওই এসএমএসে এমন ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে যা কেউ হজম করতে পারবেন না। ইমরান খানের বিরুদ্ধে তার এমন অভিযোগে পাকিস্তানের রাজনীতিতে নতুন করে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএলএন) অসৎ আচরণের জন্য ইমরান খানকে অযোগ্য ঘোষণার দাবি জানিয়েছে নির্বাচন কমিশনের কাছে। পিটিআই নেতা ফাওয়াদ চৌধুরী ও পিটিআইয়ের অন্যান্য নেতারা আয়েশা গুলেলাইয়ের বক্তব্যের জবাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তাতে তারা বলেছেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছেন আয়েশা। এ জন্য জাতীয় পরিষদের আসন থেকে তাকে পদত্যাগের আহ্বান জানানো হয়েছে।

আয়েশাকে উদ্দেশ্য করে ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, আপনি যদি পদত্যাগ না করেন তাহলে নির্বাচন কমিশনে যাবে আমাদের দল। এ সময় তিনি আরো বলেন, এখনও পিএমএলএনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ খান। তাকে যেন দলের সভাপতি থেকেও অযোগ্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন এমনটা চান তারা। ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, বর্তমানে পিএমএলএন একটি অবৈধ দল। আমরা বুঝতে পারছি না কেন নির্বাচন কমিশন নওয়াজকে দলের সভাপতি পদ থেকে অযোগ্য ঘোষণা করছে না। এ সময় তিনি প্রশ্ন রাখেন কি করে এক রাতের ভিতরেই নওয়াজের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজের অ্যাকাউন্টে ৮৮ কোটি রুপি স্থানান্তর হয়েছে।

Leave a Reply