রাজনৈতিক প্রভাব যতো কমবে বিচার বিভাগের জন্য ততো মঙ্গল

Judiciary should be free from political influence: CJ Surendra Kumar

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, বিচারক নিয়োগে রাজনৈতিক সরকারের হস্তক্ষেপ যত কম থাকবে, তা বিচার বিভাগের জন্য ততই মঙ্গল।

সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে শনিবার সদ্য অবসরে যাওয়া আপিল বিভাগের বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানাকে আজীবন সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে একথা বলেন প্রধান বিচারপতি।

এসময় তিনি বলেন, একটি নির্দিষ্ট সংখ্যা যদি নির্ধারণ হয়ে যায়, তাহলে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপটা কমে যায়। বিচার বিভাগে যত রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ থাকবে না, ততই বিচার বিভাগের জন্য মঙ্গল।

আমাদের দেশে মামলার অনুপাতে বিচারকের কোনো নির্দিষ্ট সীমারেখা নেই। পৃথিবীর প্রত্যেকটা দেশেই মামলা সংখ্যা অনুপাতে বিচারক নিয়োগের বিধান আছে, আইনও আছে।

হাই কোর্টে আমাদের একটা রেওয়াজ চলে আসছে, রাজনৈতিক সরকার চলে আসলে যেহেতু আমাদের কোনো সংখ্যা নির্ধারণ করা নেই, ইচ্ছামতো বিচারক নিয়োগ দিয়ে দিই। এটা ঠিক না। আমাদের হয়ত সময় চলে আসছে হাই কোর্টে, আপিল বিভাগে কতজন বিচারক থাকবেন তা নির্ধারণ করার।

বিচারপতি সিনহা বলেন, ‘আপিল ভিাগ থেকে ম্যাডাম নাজমুন আরা চলে গেলেন’। আগামী বছরের জানুয়ারিতে আমি চলে যাব। বিচারপতি আব্দুল ওয়াহাব মিঞাও চলে যাবেন। এরপর আপিল বিভাগে বিচারকের অবস্থা খুব খারাপ হয়ে যাবে।

একদিনে আপিল বিভাগের বিচারক হওয়া যায় না মন্তব্য করে তিনি বলেন, একটা বিচারকের ম্যাচিউরিটি আসতে সময় লাগে। তাই আমি সরকারকে অনুরোধ করব, আপিল বিভাগে অন্তত তিনজন বিচারক নিয়োগ করার জন্য।

দেশের প্রথম নারী বিচারপতি নাজমুন আরার এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ মহিলা জজ এসোসিয়েশন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। বিশেষ অতিথি ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

Leave a Reply