ইয়েমেনে প্রতিদিন কলেরায় আক্রান্ত হচ্ছে ৫ হাজার মানুষ

Cholera in Yemen

বিশ্বের সবচেয়ে বড় কলেরা মহামারী দেখা দিয়েছে ইয়েমেনে। প্রতিদিন ৫ হাজার মানুষ কলেরায় আক্রান্ত হচ্ছে বলে ধারণা করছে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন(ডব্লিউএইচও)। এ খবর দিয়েছে আল-জাজিরা অনলাইন। ডব্লিউএইচওর মুখপাত্র ফাদেলা চাইব শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, (কলেরা) পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বহুগুণ বাইরে। তিনি বলেন, ‘বর্ষা শুরু হয়েছে।

এখন সংক্রমণের রাস্তাও বৃদ্ধি পেতে পারে। এই রোগের ছড়িয়ে যাওয়া বন্ধ করতে মজবুত পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।’ ডব্লিউএইচওর প্রতিবেদন অনুসারে, এপ্রিলের শেষের দিকের পর থেকে এখন পর্যন্ত এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ৬৮ হাজার ২০৭ জন ও মৃত্যুবরণ করেছেন ১ হাজার ৮২৮ জন।  পর্যবেক্ষণ তথ্য অনুসারে, গত দু’ সপ্তাহে কিছু কিছু প্রদেশে কলেরায় আক্রান্ত হওয়ার হার কিছুটা কমেছে। সেসব প্রদেশের মধ্যে, আমানাত আল আসিমাহ, আমরান ও সানা অন্তর্ভুক্ত।

এদিকে বৃটেন-ভিত্তিক আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা অক্সফাম বলেছে, ‘আশঙ্কা করা হচ্ছে কলেরায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ধীরে ধীরে ৬ লাখ অতিক্রম করতে পারে। তাহলে, পৃথিবীর ইতিহাসে নথিভুক্ত মহামারীর তালিকার ওপরের দিকে থাকবে এই কলেরা মহামারী।’ অক্সফামের কেজেটিল অস্টনর বলেন, ‘এই সংকট সামলাতে বিপুল সাহায্যের প্রয়োজন। কিন্তু তার আগে যুদ্ধবিরতি দরকার।’ উল্লেখ্য, ২০১৪ সাল থেকে সৌদী জোট বাহিনী-সমর্থিত ইয়েমেনের সরকারি বাহিনী ও হুতি বিদ্রোহীদের মধ্যে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন প্রায় ১০ হাজার মানুষ।

জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার মুখপাত্র রুপার্ট কলভিল শুক্রবার বলেন, এই গৃহযুদ্ধের কারণে কলেরা মহামারী থামানো কঠিন হয়ে পড়েছে।’ বর্তমানে ইয়েমেনজুড়ে অন্তত ১ কোটি ৫০ লাখ মানুষ বিশুদ্ধ খাবার পানি ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থা ছাড়া জীবন-যাপন করছে। অপুষ্টিতে ভুগছে ৭০ লাখ ইয়েমেনী।

Leave a Reply