নগর বিএনপির ২৭৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র ২৭৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দিল কেন্দ্র। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সম্মতিতে গতকাল দুপুরে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কমিটির অনুমোদন দেন। পরে রাত নয়টার দিকে অনুমোদিত কমিটির নামের তালিকা দলের ভাইস চেয়ারম্যান মোশাজাহান (কমিটি গঠনে দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাহস্তান্তর করেন সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগমাহবুবুর রহমান শামীম ও নগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্করের কাছে।

ঘোষিত কমিটিতে ৩০ জন সহসভাপতি১৩ জন যুগ্ম সম্পাদক৩ জন সাংগঠনিক সম্পাদক১৮ জন সহসাধারণ সম্পাদক৮ জন সহসাংগঠনিক সম্পাদক১১ জন সম্মানীত সদস্য১০৮ জন সদস্য এবং ১৫ জন উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য রয়েছেন।

উল্লেখ্য২০১৬ সালের ৬ আগস্ট গঠন করা হয়েছিল তিন সদস্য বিশিষ্ট নগর বিএনপি’র কমিটি। এতে তৎকালীন সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগডাশাহাদাতকে সভাপতিসহসাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাশেম বক্করকে সাধারণ সম্পাদক এবং আবু সুফিয়ানকে সিনিয়র সহসভাপতি করা হয়েছিল। দীর্ঘ ১১ মাস পর এই তিনজনকে বহাল রেখেই গতকাল পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হল। এর আগে গত (রোববারদিবাগত রাত ১২টার দিকে ২৭৫ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটির চূড়ান্ত তালিকা দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার কাছে হস্তান্তর করেছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান মোশাজাহান।

গতকাল অনুমোদিত কমিটির মধ্য দিয়ে দীর্ঘ এক যুগ পর নগর বিএনপি’র পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হল। এর আগে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’তে সর্বশেষ পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছিল ১৯৯৭ সালে। সেই কমিটি ভেঙ্গে দেয়া হয়েছিল ২০০৫ সালে।

গতকাল দুপুর তিনটায় নগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, ‘একটু আগে কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন আমাদের মহাসচিব। কিছু দাপ্তরিক নিয়ম মেনে কমিটির নামের তালিকা হস্তান্তর করা হবে’।

গত রাত নয়টায় বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগমাহবুবের রহমান শামীম  বলেন, ‘আমাদের ভাইস চেয়ারম্যান মোশাজাহান এইমাত্র কমিটির নামের তালিকা আমার কাছে এবং নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের কাছে হস্তান্তর করেছেন’।

ঘোষিত কমিটি নিয়ে অভিযোগ ও মিশ্র প্রতিক্রিয়া দীর্ঘ দিন পর গঠিত নগর বিএনপি’র কমিটিতে মানা হয়নি দলীয় গঠনতন্ত্র। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, ‘কাউন্সিলের মাধ্যমে অনুর্ধ্ব ১৭১ জনের মহানগর নির্বাহী কমিটি নির্বাচিত করতে পারে।’ কিন্তু গতকাল ঘোষিত কমিটির আকার গঠনতন্ত্রের সীমারেখা ছাড়িয়ে গেছে।

২০১৬ সালের ২৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির বৈঠকে ‘এক নেতার এক পদ’ বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কিন্তু গতকাল ঘোষিত কমিটিতে তা মানা হয় নি। এর মধ্যে নগর ছাত্রদলের বর্তমান সভাপতি গাজী মোসিরাজ উল্লাহকে করা হয়েছে যুগ্ম সম্পাদক। নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আযম উদ্দিন এবং এসকে খোদা তোতনকে করা হয়েছে নগর বিএনপি’র সহসভাপতি। নগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত বুলুকে করা হয়েছে নগর বিএনপি’র সদস্য। এর বাইরে আরো একাধিক সদস্য রয়েছেন যারা দলটির বিভিন্ন সহসংগঠনের পদে আছেন।

এদিকে অভিযোগ উঠেছেদীর্ঘদিন ধরে মাঠের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন এমন প্রবীণ কর্মীদেরকে দলের সম্পাদকীয় পদ দেয়া হয় নি। এদের বেশির ভাগকেই রাখা হয়েছে সদস্য পদে। এই নিয়েও আছে তৃণমূলে ক্ষোভ। অভিযোগ আছে পদ বন্টনে সিনিয়রজুনিয়রও মানা হয় নি। যেমন১৯৯৭ সালে মীর নাছির সভাপতি ছিলেন। একই কমিটিতে সহসভাপতি ছিলেন মোমিঞা ভোলা এবং যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন এস এ সবুর। গতকাল ঘোষিত কমিটিতে এ দুজনকেই সহসভাপতি করা হয়েছে। তবে একই পদে এই দুজনকে ডিঙ্গিয়ে গেছেন সহসভাপতি এমএ আজিজ।

নবনির্বাচিত কমিটির সহসভাপতি এ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার সারোয়ার বলেন, ‘সিনিয়রজুনিয়র মানা হয় নি। যারা সবসময় নেতার বাসায় ঘুরঘুর করেন তাদেরকেই এগিয়ে রাখা হযেছে’।

অবশ্য কেউ কেউ কমিটি নিয়ে সন্তোষও প্রকাশ করেন। নবনির্বাচিত যুগ্ম সম্পাদক আবদুল মান্নান বলেনদীর্ঘদিন পর কমিটি হওয়ায় ভাল লাগছে। এতদিন পদ ছাড়াই রাজনীতি করেছিলাম। মূল্যায়িত হওয়ায় কাজ করার প্রেরণা আরো বাড়বে।

কমিটিতে যারা আছেন সভাপতি ডাশাহাদাত হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর।

সহসভাপতি আবু সুফিয়ানআলহাজ্ব এম এ আজিজমোমিঞা ভোলাএসএ সবুরকাউন্সিলর শামসুল আলমএডভোকেট আবদুস সাত্তারমোআলীসৈয়দ আযম উদ্দিনএসকে খোদা তোতনজয়নাল আবেদীন জিয়ানাজিমুর রহমানমো আলী (প্রাক্তণ ছাত্রদল), সবুক্তগীন সিদ্দিকী মক্কীজামাল আহমেদমোর্শেদ কাদরীআশরাফ চৌধুরীএম এ হালিমশফিকুর রহমান স্বপনহারুন জামানছৈয়দ আহমেদসোহরাব কোম্পানিকমিশনার মাহবুবুল আলমকমিশনার নাজিম উদ্দিনএডভোকেট মফিজুল হক ভূইয়ানিয়াজ মোখানকামাল উদ্দিন কন্ট্রাক্টরঅধ্যাপক নুরুল আলম (রাজু), ইকবাল চৌধুরীএ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার সারোয়ার ও এস.এম আবুল ফয়েজ।

যুগ্ম সম্পাদক এসএম সাইফুল আলমকাজী বেলাল উদ্দিনমোশাহা আলমইসকান্দর মির্জাআর ইউ চৌধুরী শাহীনইয়াছিন চৌধুরী লিটনআবদুল মান্নানআহমেদুল আলম চৌধুরী রাসেলজাহাঙ্গীর আলম দুলালআবুল হাশেম (কমিশনার), মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু (৭ নং ওয়ার্ড), আনোয়ার হোসেন লিপু এবং গাজী মোসিরাজ উল্লাহ (নগর ছাত্রদলের সভাপতি)

কোষাধ্যক্ষ – সৈয়দ শিহাব উদ্দিন আলম। দপ্তর সম্পাদক (যুগ্ম সম্পাদক পদ মর্যাদা)- টিংকু দাশ। সাংগঠনিক সম্পাদক মনজুরুল আলম (মনজু), কামরুল ইসলাম ও হাজী মোতৈয়ব (সাবেক কমিশনার)

সহসাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাজিম উদ্দিনশামসুল আলম ডক (বন্দর), খোরশেদ আলম (আন্দরকিল্লাহ), মোসালাউদ্দিন (ডবলমুরিং), সামসুল আলমজি এম আইয়ুব খানএস এম জিআকবরসাহেদ বক্সইসহাক চৌধুরী আলীমমাহাবুবুল হক (২৪নং ওয়ার্ড), মোশাহ আলম (ব্যাটারী গলি), কমিশনার ইয়াছিন চৌধুরী আসুআবু জহুর (১১ নং ওয়ার্ড), জহির আহম্মেদ (এনায়েত বাজার), জাহাঙ্গীর আলম (চাঁদগাঁও), হাজী বেলাল হোসেনশহীদ মোচৌধুরী ও ইব্রাহীম চৌধুরী (এনায়েত বাজার)

প্রচার সম্পাদক শিহাব উদ্দিন (মোবিন), প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক– মোআলী মিঠুআইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল ইসলামমুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক কমান্ডার শাহাবুদ্দীনমহিলা বিষয়ক সম্পাদক– রাহেলা জামানযুব বিষয়ক সম্পাদক– আব্বাস রশীদছাত্র বিষয়ক সম্পাদক– মাঈনুদ্দীন মোঃ শহীদশ্রম বিষয়ক সম্পাদক– গাজী আইয়ুবস্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক– মাহাবুবুল আলম পান্নাপ্রশি ণ বিষয়ক সম্পাদক– এম,আই চৌধুরী মামুনতথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক– এম,এ হামিদপ্রবাসী কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদকআব্দুস সালাম তালুকদারধর্ম বিষয়ক সম্পাদক– হাজী নুরুল আকতার (বক্সিহাট), মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক– এডভোকেট কামরুল ইসলাম (সাজ্জাদ), স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক– ডাসারোয়ার আলমপরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক– আমিন মাহমুদশিশু বিষয়ক সম্পাদক ডাকামরুন নাহার দস্তগীরত্রাণ ও পুর্নবাসন সম্পাদকমীর কাউসার এলাহীুদ্র ঋণ সমবায় বিষয়ক সম্পাদকনুরুল আকবর কাজলক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদকদিদারুল আলমগণশি া বিষয়ক সম্পাদক ইব্রাহীম বাচ্চুস্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদকআলহাজ্ব কামাল উদ্দিন (৩৮ নং ওয়ার্ড), বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদকহেলাল চৌধুরী (আন্দরকিল্লাহ), ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক– আবদুল নবী প্রিন্সতাঁতী বিষয়ক সম্পাদক– মোআলীমৎস্যজীবী বিষয়ক সম্পাদক – মোবখতেয়ার (৬নং ওয়ার্ড), উপজাতি বিষয়ক সম্পাদক– অধ্যাপক ঝন্টু বড়ুয়াঅর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক – মশিউল আলম (স্বপন), বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক – মোইসমাইল (৪০ নং), কৃষি বিষয়ক সম্পাদক– মুজিবুল হকপ্রশি ণ বিষয়ক সম্পাদক – ইয়াকুব চৌধুরীজলবায়ু বিষয়ক সম্পাদক – নুরজ্জামান (৩৯নং), সমাজ কল্যাণ সম্পাদক – এডভোকেট পারভীন আকতার চৌধুরীগ্রাম সরকার বিষয়ক সম্পাদক – আবদুল হাকিম কক্ট্রাক্টরশিল্প বিষয়ক সম্পাদক – শহীদুল ইসলাম (শহীদ), নগর উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক – জিয়া উদ্দিন খালেদআপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক – ইউসুফ জামালহকার্স কল্যাণ সম্পাদক – আবদুল বাতেন সহ কোষাধ্য – ,কে,খান ও নুরুল আলম চৌধুরী (বন্দর)

সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম পেয়ারুডাগোলাম কাদের চৌধুরী নোবেলসালাউদ্দিন কাউসার লাবুডাশাহ নেওয়াজ সিরাজ মামুনআব্দুল হালিম স্বপনইকবাল হোসেনমোসেলিম (বন্দর), ও মোরফিকুল ইসলাম।

সহ দপ্তর সম্পাদক– ইদ্রিস আলী ও অধ্য খোরশেদ আলমসহ প্রচার সম্পাদকখোরশেদ আলম (কুতুবীও মোশাহাজাহান। সহধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন– রেহান উদ্দিন প্রধানইঞ্জিনিয়ার বিষ্ণু বড়ুয়া ও অধ্যাপক রঞ্জিত বড়ুয়া। সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক – এডভোকেট জহুরুল আলমএডভোকেট নেজাম উদ্দিন খান ও এডভোকেট ইরফান। সহ মহিলা বিষয় সম্পাদক– বেগম লুৎফুন্নেসা ও ডালুসী। সহ যুব সম্পাদক– আজাদ বাঙ্গালী ও ইসমাইল বাবুল। সহ স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক– আরিফ মেহেদীসহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদকইউনুস চৌধুরী (হাকিম), সহ শ্রম বিষয়ক সম্পাদক– আবু মুসাসহ পরিবেশ সম্পাদক সাবের আহমেদসহপ্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক শফিক আহম্মেদসহ তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক– আলমগীর নুরসহ স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক – হাসেম সওদাগরসহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক– নকীব উদ্দিন ভূঞাসহ মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক– আবদুল মতিন ও ফয়েজ আহম্মেদ। সহ প্রবাসী কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক– মাঈনুল হোসেনসহ মানবিধিকার বিষয়ক সম্পাদক– এডভোকেট তৌহিদুর রহমান (তুহীন), সহ বাণিজ্য সম্পাদক– ওয়াহিদুল আলমসহ সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক– আবুল খায়ের (মেম্বার), সহ ক্রীড়া সম্পাদক– মোস্তফিজুর রহমান (বুলু), সহ শিল্প বিষয়ক সম্পাদকনুর আহম্মেদ (পিন্টু), সহ ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক– ইউসুফ আলীসহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক– ডাশকিরসহ প্রকাশনা সম্পাদক– আবদুল হাইসহ আপ্যয়ন বিষয়ক সম্পাদক – মোআবদুল আজিজসহ অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক– হাজী আব্দুল মান্নান চৌধুরীসহ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক– মোআবু তাহেরসহ বাণিজ্য সম্পাদক– হাসান লিটনসহ জলবায়ু সম্পাদক– ফরিদ আহম্মেদসহ সাংস্কৃতিক সম্পাদক– আলী আজমসহ গ্রাম সরকার সম্পাদক– সালাউদ্দিন (লাতু)

সন্মানিত সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীমনজুর মোর্শেদ খানআবদুল্লাহ আল নোমানমীর মোনাছির উদ্দিনসৈয়দ ওয়াহিদুল আলমবেগম রোজী কবিরআসলাম চৌধুরীমাহবুবুর রহমান (শামীম), এ এম নাজিম উদ্দিনএম শামসুল আলমআনোয়ার হোসেন।

সদস্য শেখ নুরউল্লাহ বাহারআলহাজ্ব নাসির উদ্দিনকাউন্সিলর এস এম ইকবাল হোসেনএডভোকেট তারিফ আহম্মেদশামসুল হকমোশারেফ হোসেন দীপ্তিকামাল পাশা নিজামীবেলায়েত হোসেন বুলুকমিশনার আবদুর রহীমকমিশনার এম এ মালেকহাজী মোইউসুফহাজী মোনাজেরআলহাজ্ব মোহোসেনএমএসবুরআব্দুল হাসেমরফিকুল ইসলাম (মিনু), রফিকুল ইসলাম সর্দারহাজী মোহোসেনআবুল কালাম (আবু), আলহাজ্ব মোছৈয়দআজিজুল রহমান (বাবুল), এম এ সবুর (গোসাইলডাঙ্গা), ফরিদুল হক লিটন (১৭নং ওয়ার্ড), দিদারুল আলম স্বপনমোমহিউদ্দিন (১০নং ওয়ার্ড), হামিদুর রহমান (৩১ নং ওয়ার্ড), আইয়ুব খান (১০ নং ওয়ার্ড), মোইউসুফ (৯ নং ওয়ার্ড), গিয়াস উদ্দিন বাবলু (১৫ নং ওয়ার্ড), রফিকুল ইসলাম (খোকন), আবদুল হালিম (লোহানী), মোনাসির (৩৬নং ওয়ার্ড), আবু মুসাজসিম উদ্দিনমোমহসিন আলী চৌধুরী (হালিশহর), আবুল কালাম আজাদ (সেলিম), আবদুর রহিম (৩ নং ওয়ার্ড), খোরশেদ আলম (৩১ নং ওয়ার্ড), খালেদ সাইফুল্লাহমোইয়াসিননসরুল্লাহ চৌধুরীনুরুল আলমমোইসহাক (৩ নং ওয়ার্ড), মোআলমগীর (এনায়েতবাজার), মাহাবুব রানামোরোমেল ইঞ্জিনিয়ার মেজবাহ উদ্দিন (রাজু), মনোয়ারা বেগম মনিমীর কাউসার (বাবু), ফাতেমা বাদশাজেলী চৌধুরীজেসমীনা খানমসখিনা বেগমআঁখি সুলতানারিজিয়া বেগম (মুন্নী), তাহমিনা আকতার (মিনা), মোআবু সালেহএডভোকেট ফিরোজশফিক আহম্মেদ (চকবাজার), আবদুস সাত্তার (পতেঙ্গা), মোজসিম উদ্দিন (৪নং ওয়ার্ড), মোহাসেম (২৩ নং ওয়ার্ড), বুলবুল (২৪ নং ওয়ার্ড), ব্যারিস্টার ফয়সাল দস্তগীরমোরাসেল (৪ নং ওয়ার্ড), মোআতিকমালেক ফারুকীজমির আহম্মেদইউসুফ শিকদারদিদারুর রহমান সুমন (১২নং ওয়ার্ড), শামসুল আলম (২৩ নং ওয়ার্ড), মোইউসুফ (১৮ নং ওয়ার্ড), আলী ইউসুফ (১৮ নং ওয়ার্ড), মোজাকির হোসেন (৮ নং ওয়ার্ড), আলী ফজলজাহাঙ্গীর আলমআশারাফ উজ জামান স্বপনআক্তার হোসেন মনজুহাজী জাকের হোসেনমনজুর কাদের মিন্টুকমিশনার আরজু সাহাবউদ্দিনআব্দুল করিম ভুট্টোমোশাজাহান (১৭নং ওয়ার্ড), সাধুমিয়া (৩নং ওয়ার্ড), নুরুল আবছার তৌহিদমোইদ্রিস মিয়া (কালুরঘাট), এ্যাডভোকেট ইরফানএম এ হামিদএস.এম সালাউদ্দিন (জামাল খান), আবু মোহাম্মদ হোসেননুর উদ্দিন নুরুশাহেদা বেগমবশির উদ্দিনমোতাসলিমরাশেদ চৌধুরীমোরফিক (৪১ নং ওয়ার্ড), মাহাবুব এলাহী (৩৯ নং ওয়ার্ড), জমির আহম্মেদনবী সওদাগর (আলকরণ), হাজী এবাদুর রহমান (৩৮ নং ওয়ার্ড), আলহাজ্ব নুরুল আমিন (৩৬ নং ওয়ার্ড), মোইলিয়াস (৪১ নং ওয়ার্ড), লুৎফর (২৪ নং ওয়ার্ড), আব্দুল মাবুদ (২৭ নং ওয়ার্ড), এ্যাডভোকেট হাসান (৩৮ নং ওয়ার্ড), সুজা চৌধুরী (৩৮ নং ওয়ার্ড), এ্যাডভোকেট এফ এ সেলিম ও মোআলী।

উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য এডভাকেট দেলোয়ার হোসেনশাহজাদা এনায়েত উল্লাহ খানএমএ শুক্করআলহাজ্ব ওমর ফারুকআবুল হোসেনডাগোলাম মর্তুজা হারুনইঞ্জিনিয়ার আবু সুফিয়ানইঞ্জিনিয়ার জানে আলম (সেলিম), হাজী আবুল হাসেম চৌধুরীঅধ্যাপক নসরুল কাদিরডক্টর হাসান মাহমুদডক্টর সিদ্দিক আহম্মেদ চৌধুরীঅধ্যাপক আবুল কালাম আজাদকাজী আকবর ও মোহাসান চৌধুরী।

Leave a Reply