‘হাজব্যান্ড আমাকে মারুক-কাটুক, সে আমার স্বামী’: অপু

 

আইনিউজ১৬ রিপোর্ট :: এইভাবেই মিডিয়ার সামনে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করলেন অপু ইসলাম খান (অপু বিশ্বাস)। ১০ মাস মিডিয়া থেকে নিজেকে গোপন রেখে হঠাৎ করে মিডিয়ার সামনে এসে তার জীবনে ঘটে যাওয়া কষ্টের কথা দেশের মানুষের সামনে তুলে ধরলেন অপু।

তিনি বলেন, আজ আমি খুব আনন্দিত। কারণ শাকিব আমাকে মেনে না নিলেও তার জন্ম দেয়া ছেলের দায়িত্ব নিবেন বলে আপনাদের কাছে বলেছেন তা শুনে আমি সত্যি অনেক খুশি হয়েছি। আমি কখনো চাইনা আমার দায়িত্ব কখনো কেউ নিক। আমার ফ্যামিলি, বাবা-মা ও আমার দায়িত্ব নিক সেটিও আমি চাই না। মোদ্দাকথা আমি কখনো কারো দখলে থাকতে চাইনা। আমি আবার মিডিয়াতে ব্যস্ত হয়ে যাবো। আমি আবার মিডিয়াতে আমার স্থান দখল করব। শাকিব আমার দায়িত্ব নিক এটা আমিও চাই না। তবে সন্তানের দায়িত্ব নেবে জেনে খুশি হয়েছি। সময়ই বলে দেবে সাতদিন পর সে আবার আরেক কথা বলে কিনা!

অপু বলেন, মারলেও স্বামী, কাটলেও স্বামী। আমি আমার সন্তানের স্বীকৃতি চেয়েছি। আমি আর দশজন ঘরোয়া মেয়ের মতো না। আমি আমার দায়িত্ব নিতে পারি। আমি হ্যাপি- বাবা তার ছেলেকে নেবে। পৃথিবীতে এর চেয়ে বড় কিছু নেই। আমার বাচ্চার বয়স ৭ মাস হলো। কয়দিন পর এক বছরের বার্থ ডে করতে হবে না? এই স্বীকৃতিতো লাগবে।

তিনি আরো বলেন, আসলে আজকের ঘটনায় সে একটু আপসেট মনে হয়। আমি নিজের স্বীকৃতি নিয়ে কাল শ্বশুরবাড়ি গিয়ে বলব, মা আপনার জন্য ভাত রান্না করি- এমন মেয়ে আমি না। আমি আমার সন্তানের ভবিষ্যৎ ভেবে একজন মায়ের দায়িত্ব পালন করেছি।

এদিকে শাকিব খান বলেন, স্ত্রীর মর্যাদা পেতে নয়, রংবাজ ছবির নায়িকা হতে চায় অপু। সেজন্যেই এসব ষড়যন্ত্র করেছেন। ওর (অপু) সঙ্গে আমার কিছু নাই। অপু স্ত্রীর মর্যাদা চায় না, নায়িকা হতে চায়। আমি দায়িত্ব নেবো ৭ মাসের সন্তানের, অপুর না।

বিকেলে টেলিভিশনে অপু বিশ্বাস বলেন, ২০০৮ সালে ১৮ এপ্রিল আমাদের বিয়ে হয়। আমাদের একটি ছেলেও আছে। তার নাম আব্রাহাম খান জয়। এর পরপরই শাকিব বিভিন্ন গণমাধ্যমে আব্রাহামকে তার ছেলে বলে স্বীকার করে।

এর আগে বিকালে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠানে অপু বিশ্বাস বলেন, শাকিবকে বিয়ে করে নিজের নাম পাল্টে রাখেন অপু ইসলাম খান। ২০০৮ সালে ১৮ এপ্রিল তাদের বিয়ে হয়। শাকিবের ঢাকার বাসায় এ বিয়ে হয়। দুই পরিবারের কাছের লোকজন এই বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। শাকিবের ভালো ও তার কেরিয়ারের কথা বিবেচনা করে এত দিন বিষয়টি গোপন রেখেছেন অপু।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার এক ক্লিনিকে তাদের সন্তানের জন্ম হয়।

Leave a Reply