ব্লক রেইডে প্রতিটি বাড়িতে তল্লাশি চালাবে সিএমপি পুলিশ

Chittagong

জঙ্গি প্রতিরোধে চট্টগ্রামের মহানগর এলাকার প্রত্যেক পাড়া, মহল্লা ও বাড়িতে ব্লক রেইড বসিয়ে তল্লাশির নির্দেশ দিয়েছেন নগর পুলিশের কমিশনার ইকবাল বাহার।

এ ছাড়া নগরীর প্রত্যেক এলাকায় বিট কার্যালয় স্থাপন, মাদকসেবীদের পুনর্বাসন ও ছিনতাই প্রতিরোধে সম্মিলিত প্রতিরোধ গড়ে তুলতেও নির্দেশ দেন তিনি।

বুধবার নগরের লালদীঘির পাড়ের চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ সিএমপি সদর দফতরে আয়োজিত মাসিক অপরাধ সভায় কমিশনার এসব নির্দেশ দেন।

সভায় উপস্থিত ছিলেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) মাসুদ উল হাসান, অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) দেবদাস ভট্টাচার্য, উপ-কমিশনার (বন্দর) হারুন-উর-রশিদ হাযারী, উপ-কমিশনার (সদর) ফারুক আহমেদ, উপ-কমিশনার (উত্তর) আব্দুল ওয়ারীশ, উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মোস্তাইন হোসেন, উপ-কমিশনার (ডিবি-উত্তর ও দক্ষিণ) পরিতোষ ঘোষ, উপ-কমিশনার (ডিবি-বন্দর ও পশ্চিম) মারুফ হোসেন, উপ-কমিশনার (ট্রাফিক-বন্দর)  সৈয়দ আবু সায়েম ও উপ-কমিশনার (বিশেষ শাখা) মোখলেছুর রহমান।

সভায় অংশ নেওয়া কর্মকর্তারা জানান, সিএমপি কমিশনার সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে বেশ কিছু নির্দেশ দিয়েছেন। এ অনুযায়ী জঙ্গিবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় চলমান ব্লক রেইড জোরদার করা। নগরের ১৪৫টি পুলিশ বিটকে নিজস্ব কার্যালয় স্থাপন করতে হবে। মাদক সেবন ও ব্যবসা থেকে ফিরে আসা ৪০০ জনকে পুনর্বাসন করবে নগর পুলিশ। তালিকা তৈরি করতে নগরের প্রতি থানার ওসিদের বলা হয়েছে। সম্মিলিতভাবে ছিনতাই প্রতিরোধের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

ওই সভায় অপরাধ দমনে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে না পারায় হালিশহর ও পাঁচলাইশ থানার ওসিদের ভর্ৎসনা করেন পুলিশ কমিশনার। প্রশংসা করেন বায়েজিদ বোস্তামি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিনের। নগরের ১৬ থানার মধ্যে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, মামলার রহস্য উদ্ঘাটন, আসামি গ্রেফতার ও ভালো কাজের সূচকে গত ফেব্রুয়ারি মাসে সর্বনিম্ন অবস্থানে ছিল হালিশহর ও পাঁচলাইশ থানা। সূচকে সর্বোচ্চ অবস্থানে ছিল বায়েজিদ বোস্তামি থানা। সভায় বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ৭৩ জন পুলিশ সদস্যকে পুরস্কৃত করা হয়।

Leave a Reply