শুরু হলো স্কুল বিজ্ঞান বিতর্ক প্রতিযোগিতার বৃহত্তম আসর

‘তর্কে বিতর্কে, বিজ্ঞানের সাথে’ স্লোগানে গতকাল বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে বিএফএফ-সমকাল পঞ্চম জাতীয় স্কুল বিজ্ঞান বিতর্ক প্রতিযোগিতা। ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রংপুর, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর ও নীলফামারীতে গতকাল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হলো এ আয়োজনের জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতা। এসব জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিতার্কিকরা অংশ নেয় যুক্তিতর্কের লড়াইয়ে। স্কুল পর্যায়ের তার্কিক ও খুদে বিজ্ঞানীরা বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ের পক্ষে-বিপক্ষে তুলে ধরে তাদের নানা যুক্তি; সঙ্গে চলে তর্ক-বিতর্ক।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বিতর্কের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের বিকাশ ঘটে। শহরের বিজ্ঞান শিক্ষা ক্রমে গ্রামে ছড়িয়ে পড়ছে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান শিক্ষার উপকরণের অভাব রয়েছে, তবুও আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। তারা বলেন, স্কুল পর্যায়ে বিজ্ঞান বিতর্ক

প্রতিযোগিতার আয়োজনে তৃণমূল পর্যায়ে খুদে বিজ্ঞানী তৈরি হবে এবং তারাই একদিন বড় কোনো কিছু আবিষ্কার করবে। তাই বছরে একটি নয়, জেলা পর্যায়ে প্রতি মাসে একটি করে বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা প্রয়োজন।

বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন (বিএফএফ) ও সমকালের উদ্যোগে স্কুল পর্যায়ের খুদে শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি আরও আগ্রহী করে গড়ে তুলতে এই বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। এর আয়োজক সমকাল সুহৃদ সমাবেশ। সহযোগিতায় রয়েছে_ পাওয়ার্ড বাই বসুন্ধরা খাতা, এনলাইটেন্ড বাই এসিআই পিওর সল্ট, প্রাইজ পার্টনার ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেড, নলেজ পার্টনার আগামী, গোল্ডেন পার্টনার বঙ্গজ বিস্কুট এবং ব্যবস্থাপনায় রয়েছে কিংবদন্তী মিডিয়া।

রংপুর অফিস জানায়, সকালে রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে শুরু হয় জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতা। এতে রংপুরের আটটি দল অংশ নেয়। প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় রংপুর জিলা স্কুল। রানার্সআপ হয় রংপুর শিশুনিকেতন উচ্চ বিদ্যালয়। শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় রংপুর জিলা স্কুল দলের দলনেতা মঞ্জুরুর রহমান। অংশ নেওয়া অপর দলগুলো হলো_ রংপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়, লালকুঠি স্কুল ও কলেজ, আল মদিনা ইনস্টিটিউট, রবাটসনগঞ্জ স্কুল ও কলেজ এবং মাহিগঞ্জ আমতলা বিদ্যাপীঠ।

বিকেলে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সমকাল সুহৃদ সমাবেশের রংপুরের সভাপতি আজহারুল ইসলাম দুলাল। প্রধান অতিথি ছিলেন রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আবুল কাশেম। সম্মানিত অতিথি ছিলেন রংপুর মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার ও রংপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি সদরুল আলম দুলু, মেট্রোপলিটন চেম্বারের সভাপতি রেজাউল ইসলাম মিলন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. তুহিন ওয়াদুদ, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আপেল মাহমুদ, সমকালের স্টাফ রিপোর্টার ইকবাল হোসেন, বসুন্ধরা পেপার্স মিলসের ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন, রংপুর জিলা স্কুলের সহকারী শিক্ষক শাহানা সুলতানা প্রমুখ।

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন চ্যানেল আইয়ের স্টাফ রিপোর্টার বিতার্কিক মেরিনা লাভলী, বিতার্কিক প্রভাষক মো. হাসেম আলী, মো. হামীম, চণ্ডীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুল আলম ও জাতীয় বিতর্ক ফাউন্ডেশনের সমন্বয়ক ফিরোজ কবির কিরণ। সময় নিয়ন্ত্রক হিসেবে ছিলেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রায়হান সরকার ও তরিকুল ইসলাম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নারী উদ্যোক্তা শাহনাজ বেগম লাভলী, মাহিগঞ্জ আমতলা বিদ্যাপীঠের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম, রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাফরুহা হক লাকী, প্রকৌশলী মাহবুব রহমান, সুহৃদ সমাবেশের এহসানুল হক সুমন, শাহীনুর রহমান শাহীন, শরিফুল ইসলাম তালুত, রাকিব হাছান লিখন প্রমুখ।

পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, পঞ্চগড়ের ড. আবেদা হাফিজ গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় জেলার আটটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। এতে চ্যাম্পিয়ন হয় পঞ্চগড় সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। রানার্সআপ হয় ফুটকিবাড়ী স্কুল অ্যান্ড কলেজ। অংশ নেওয়া অপর দলগুলো হলো_ বিপি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, কালেক্টরেট আদর্শ শিক্ষানিকেতন, দেওয়ানহাট উচ্চ বিদ্যালয়, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার কলেজিয়েট ইনস্টিটিউট, মাঘই পানিমাছপুকুরী উচ্চ বিদ্যালয় এবং ড. আবেদা হাফিজ গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন ড. আবেদা হাফিজ গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মির্জা তারেক ইবনে হায়াদ। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ময়দানদীঘি ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক ও সুহৃদ সমাবেশের যুগ্ম আহ্বায়ক কুদরত-ই-খোদা মুন এবং ফুটকিবাড়ী স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মো. হাবিবুল ইসলাম। সমকাল সুহৃদ সমাবেশ পঞ্চগড় শাখার আহ্বায়ক ও পঞ্চগড় টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজের প্রভাষক মো. রফিকুল ইসলাম অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে ভজনপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. সফিকুল ইসলাম প্রধান অতিথি এবং পঞ্চগড় টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজের অধ্যক্ষ মো. সামসুজ্জামান ও ফুটকিবাড়ী স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. এমদাদুল হক বিশেষ অতিথি ছিলেন।

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সঞ্চালক হিসেবে ছিলেন ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার কলেজিয়েট ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. আজহারুল ইসলাম জুয়েল। বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন পঞ্চগড় বিপি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আবু সুফিয়ান, দেওয়ানহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তৈমুল হক, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার কলেজিয়েট ইনস্টিটিউটের সহকারী শিক্ষক মো. আজহারুল ইসলাম জুয়েল, কালেক্টরেট আদর্শ শিক্ষানিকেতনের সহকারী শিক্ষক মো. রাকিবুল হাসান, মাঘই পানিমাছপুকুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের মো. মোশাররফ হোসেন, ড. আবেদা হাফিজ স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক মো. আনসারুল ইসলাম এবং একই প্রতিষ্ঠানের প্রভাষক মোছা. দিলরুবা ইয়াসমিন।

দিনভর বিতর্ক প্রতিযোগিতা এবং অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন সমকালের পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি সফিকুল আলম ও সুহৃদ সমাবেশের মো. হাবিবুর রহমান হাবিব। এ ছাড়া মো. মুন্না, শাকিল রানাসহ সুহৃদ সমাবেশ পঞ্চগড়ের সদস্যরা সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেন।

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি জানান, খুদে বিতার্কিকদের যুক্তিতর্কে গতকাল মুখরিত হয়ে ওঠে ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ। ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় আর কে স্টেট উচ্চ বিদ্যালয়। রানার্সআপ হয় ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়। শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় আর কে স্টেট উচ্চ বিদ্যালয়ের দলনেতা মো. আবু লোমান হোসেন শুভ। প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া অপর ছয়টি দল হলো_ ঠাকুরগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পুলিশ লাইন উচ্চ বিদ্যালয়, আমানতুল্লাহ ইসলামী একাডেমি, গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, হাজীপাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এবং সিএম আইয়ুব বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।

বিদ্যালয়ের মাল্টিপারপাস হলরুমে সকাল ১০টায় প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন ঠাকুরগাঁও সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক বদিউজ্জামান সরকার। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা কৃষক লীগের সভাপতি সরকার আলাউদ্দিন, সাংবাদিক ফারুক আহমেদ ও সমকাল সুহৃদ সমাবেশ ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাশেদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঠাকুরগাঁওয়ের সিনিয়র সাংবাদিক ও সাপ্তাহিক সংগ্রামী বাংলার সম্পাদক আবদুল লতিফ। উদ্বোধনী পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমকালের ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি ও সুহৃদ সমাবেশের উপদেষ্টা মো. আসাদুজ্জামান আসাদ।

প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন ঠাকুরগাঁও গড়েয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক নাজমুল ইসলাম, সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক কর্মী ফারুক আহমেদ ও খাদেমুল ইসলাম। সঞ্চালনা করেন ঠাকুরগাঁও এনজিও সেলের সমন্বয়কারী ও সমকাল সুহৃদ সমাবেশ ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার সহসভাপতি নাজমিন বেগম সি্নগ্ধা।

বিকেলে পুরস্কার ও সনদ বিতরণ-পূর্ব সমাপনী আলোচনায় প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক অধ্যাপক মনতোষ কুমার দে (অব.)। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঠাকুরগাঁও চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক ও সুহৃদ সমাবেশের ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার উপদেষ্টা মামুনুর রশিদ এবং আর কে স্টেট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সুহৃদ সমাবেশের ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার উপদেষ্টা জাহিদুল ইসলাম স্বপন।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিক-সাংস্কৃতিক কর্মী ও সুহৃদ সমাবেশের উপদেষ্টা সাইফুল ইসলাম প্রবাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ঠাকুরগাঁও গড়েয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক নাজমুল ইসলাম, সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হুসেন আহমেদ প্রমুখ।

দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, দিনাজপুর কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিতর্ক মিলনায়তনে সকালে প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এতে দিনাজপুর কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজ চ্যাম্পিয়ন এবং ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ রানার্সআপ হয়। প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া অপর দলগুলো হলো_ আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, টিউলিপ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সারদেশ্বরী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পুলিশ লাইন উচ্চ বিদ্যালয়, মনিরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও চেহেলগাজী শিক্ষা নিকেতন।

বিকেলে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সনদ ও চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্যদের মধ্যে ক্রেস্ট বিতরণ করা হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন সমকাল সুহৃদ সমাবেশের দিনাজপুরের উপদেষ্টা ও নাট্যব্যক্তিত্ব তারেকুজ্জামান তারেক, সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি মেহেদী হাসান ও সমকালের দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি বিপুল সরকার সানি।

প্রতিযোগিতায় মডারেটর ও বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন দিনাজপুর জিলা স্কুলের শিক্ষক নাজির হোসেন, বিশিষ্ট আবৃত্তিকার সিরাজুম মুনিরা, শিক্ষিকা সাবিনা ইয়াসমিন ও মীন আরা পারভীন ডালিয়া।

এ আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করেন সমকাল সুহৃদ সমাবেশের সদস্য খুরশিদ আলম আকাশ, আলমগীর হোসেন, ওলিউর রহমান, দৈনিক সকালের খবর পত্রিকার প্রতিনিধি এমদাদুল হক মিলন, এসএ টিভির প্রতিনিধি খাদেমুল ইসলাম, দেশ টিভির আবুল কাশেম, নবিউল হক দুলু, মোস্তফা কামাল প্রমুখ।

জলঢাকা, সৈয়দপুর ও ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি জানান, নীলফামারী মশিয়ূর রহমান ডিগ্রি কলেজে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় আটটি দল অংশ নেয়। বেলা ১১টায় প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন সুহৃদ সমাবেশের নীলফামারী জেলা শাখার সভাপতি ও মশিয়ূর রহমান ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সরওয়ার মানিক। এতে নীলফামারী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন ও সৈয়দপুর সানফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ রানার্সআপ হয়।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া অপর দলগুলো হলো_ সৈয়দপুর কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, নীলফামারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ডোমার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, জলঢাকা বিদ্যালয় ও জলঢাকা মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয়।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সমকালের সৈয়দপুর প্রতিনিধি সাকির হোসেন বাদল, জলঢাকা প্রতিনিধি হাসিবুল ইসলাম, ডোমার প্রতিনিধি রওশন রশিদসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা।

প্রতিযোগিতা শেষে চ্যাম্পিয়ন নীলফামারী সরকারি বালিকা বিদ্যালয় দলনেতা তিলোত্তমা কারিশমা কুণ্ডুর হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নীলফামারী জজকোর্টের পিপি রামেন্দ্র বর্ধন বাপ্পী।

সমকাল

Leave a Reply