‘কানাডার রায় আ’লীগের সাজানো নাটক’: রিজভী

Ruhul Kabir Rijviকানাডার একটি আদালতের রায়ে বিএনপিকে ‘সন্ত্রাসী দল’ বলে যে অাখ্যা দেওয়া হয়েছে সেটি সরকারের সাজানো নাটক এবং উদ্দেশ্যমূলক প্রচার বলে দাবি করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
বৃহস্পতিবার দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

তিনি বলেন, কানাডার এ ঘটনা গত জানুয়ারি মাসের। বিএনপির এক কর্মীর রাজনৈতিক আশ্রয় লাভের ঘটনার একটির মামলার রায়। আর সেটিকে ক্ষমতাসীনদের প্রভাবাধীন মিডিয়ায় প্রচারের ধুম পড়েছে। এ ঘটনায় প্রমাণ করে এটি সরকারের সাজানো একটি নাটক এবং উদ্দেশ্যমূলক প্রচার।

রিজভী দাবি করেন, নির্বাচনের আগে জনগণের মধ্যে ‘ধোঁয়াশা’ সৃষ্টি করতে এসব ‘নাটক সাজাচ্ছে’ ক্ষমতাসীনরা।

তিনি বলেন, ‘রায় পড়ে যতটুকু বুঝেছি, এটা সম্পূর্ণ চক্রান্তমূলক’। আমরা মনে করি, এটি বর্তমান সরকারের একটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বিষয়, তারা একটি নাটক সাজিয়েছে এবং ওই নাটকটায় ওইভাবে তারা তথ্য-প্রমাণ দিয়েছে।

বিএনপি এই রায়ের বিষয়ে কী করবে, কানাডার উচ্চ আদালতে যাবে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সেটা আমরা নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে বলতে পারব’। এখন যেটা তাৎক্ষণিক জেনেছি, তার প্রতিক্রিয়া জানালাম।

হরতাল-অবরোধে সহিংসতা ও সন্ত্রাসের সঙ্গে বিএনপির সংশ্লিষ্টতার কারণে দলটির এক কর্মীর রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন কানাডার অভিবাসন দপ্তর খারিজ করে দিলে তিনি ফেডারেল আদালতে যান। ফেডারেল আদালতও গত জানুয়ারিতে তার আবেদন খারিজ করে দেয়, যার পূর্ণাঙ্গ রায় সম্প্রতি প্রকাশিত হয়।

রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, বিএনপি সন্ত্রাসে ছিল, আছে বা ভবিষ্যতেও থাকতে পারে। রাজনৈতিক কর্মসূচিতে সহিংসতা, সরকারের লক্ষ্য অর্জন কঠিন করে তুলতে অর্থনৈতিক ক্ষতির কৌশল হিসেবে হরতালের ব্যবহার এবং তাতে বিএনপির সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন ও ইন্টারনেটের উন্মুক্ত তথ্য তুলে ধরে এই পর্যবেক্ষণ দেয় কানাডার ফেডারেল আদালত।

রায়ের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসে রিজভী বলেন, ‘সরকার প্রভাবিত মিডিয়ায় গতকাল (বুধবার) আমরা যেভাবে সংবাদটি দেখেছি, কানাডার যে অনলাইনে এসেছে আমরা সেটাও দেখেছি, সেটা শওগাত আলী সাগর, ছাত্রলীগের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে’। তারা কানাডায় বসে বিএনপির বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও নানা ধরনের চক্রান্তের জাল তৈরি করছেন, একটা পরিকল্পনা তৈরি করছেন- এটা স্পষ্ট।

রায়ের একটি অংশের বক্তব্য তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘বিরোধী দলের একজন ছেলে স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মীর কথা বলা হচ্ছে, সে তার আবেদনে কি বিএনপির বিরুদ্ধে বলবে’? সে তো বলবে আমি বাংলাদেশে একটা প্রতিকূলতার মধ্যে আছি, হয়রানি হচ্ছে, মামলা হচ্ছে, টর্চার হতে পারে, এক্সট্রা জুডিশিয়াল কিলিংয়ের শিকার হতে পারে- এসব কথা আবেদনে বলবে। সে বিএনপির বিরুদ্ধে বলবে কেন?

‘এজন‌্যই মনে হচ্ছে, এটা একটা সাজানো নাটকের বিষয়’। যেটা কানাডায় উপস্থাপন করেছেন, ইমিগ্রেশন বিভাগকে এভাবে ভুল তথ্য তারা দিয়েছেন, বানানো নাটকের ভুল তথ্য দিয়েছেন এবং সেটা তারা কোর্টে নিয়ে গেছেন।

Leave a Reply