মধ্যরাতে ‘বেতাল’ হয়ে পড়েছিলেন খালেদা: প্রধানমন্ত্রী

 

আইনিউজ১৬ ডেস্ক :: বাংলা ভাষার প্রতি সম্মান না থাকায় একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নেতাকর্মীদের নিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের মূল বেদিতে উঠে পড়েছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মধ‌্যরাতে যাওয়ায় হয়ত ‘বেতাল’ হয়ে পড়েছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বুধবার আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘ভাষার প্রতি তাদের সম্মানই নেই। শহীদ মিনার, একটি পবিত্র জায়গা। ওই শহীদ মিনারে আমরা যেখানে ফুল দিয়েছি। মহামান্য রাষ্ট্রপতি ফুল দিয়েছেন। আমি ফুল দিয়েছি। মাননীয় স্পিকার ফুল দিয়েছেন। অসংখ্য নেতারা ফুল দিয়েছেন। বিএনপি নেত্রী তার স্ব-দলবল নিয়ে ঠিক ওই জায়গাটায় উঠে দাঁড়িয়েছেন।

যেখানে সবাই ফুল দেবে, সেই বেদীতে যদি উঠে যায় তাহলে, তিনি ফুলটা দিলেন কোথায়? নিজের পায়ে দিয়ে এলেন কি না, সেটাই প্রশ্ন?

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা মানুষ পুড়িয়ে খুন করতে পারেন, তাদের কাছে কী সংস্কৃতির আশা করবেন’? এরা আমাদের সংস্কৃতি, ভাষা ও সাহিত্যের মর্যাদা বুঝবেন কীভাবে। তাছাড়া এদের মনে পেয়ারে পাকিস্তান। এজন্য শহীদ মিনারের মূল বেদিতে উঠে পড়েছিলেন। এরা জানেন না কোথায় ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে হয়।

তিনি আরো বলেন, ‘আচ্ছা, উনি না হয় তো বেতাল হয়ে গেছেন। কারণ, মধ্যরাতে গেছে। উনার দলের লোকেরা দেখবে না? দলের নেতাকর্মীরা যারা ছিল তারা কি তাকে ঠিকমত জায়গায় নিয়ে যাবে না? নাকি ওনার দলের লোকরাও মধ্যরাতে বেতাল হয়ে যায়?

পাকিস্তান শাসনামলে রবীন্দ্রনাথ ও নজরুলের কবিতা বিকৃতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মহাশ্মশানের জায়গায় লেখা হয় গোরস্থান’। ‘সকালে উঠে আমি মনে মনে বলি’ এর স্থলে লেখা হয় ‘ফজরে উঠে আমি দেলে দেলে বলি’।

‘এগুলো আমরা নিজেরাই জানি। আমরা এর ভুক্তভোগী। রবীন্দ্রনাথ তো এক সময় বন্ধই করে দিল। রবীন্দ্রসঙ্গীত গাওয়া যাবে না, রবীন্দ্রনাথ পড়া যাবে না’।

Leave a Reply